১০টি প্রয়োজনীয় ক্যামেরা এক্সেসোরিজ যা থাকা প্রয়োজন

178
ক্যামেরা এক্সেসোরিজ

১০ টি প্রয়োজনীয় ক্যামেরা এক্সেসোরিজ যা থাকা একান্ত প্রয়োজন

শখের বশে সবচেয়ে কম দামে ডিএসএলআর ক্যামেরা তো কিনে ফেললেন!

এবার এবার আপনার দরকার ক্যামেরাটি নিরাপদ, সুন্দর আর দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহার এর জন্য কিছু এক্সেসোরিজ।

অনেকেই আলসেমি করে কালেকশন এ এসকল এক্সেসোরিজ রাখে না এতে করে কিন্তু ক্যামেরায় স্ক্রাচ পড়া থেকে শুরু করে যেকোনো ভাবে নষ্ট হয়ে যেতে পারে আপনার প্রিয় এই ক্যামেরাটি। এছাড়াও ফটোগ্রাফি কে আরো সহজ আর প্রফেশনাল ভাবে করতেও কিন্তু এসকল জিনিসপত্র দরকার হয়।

জেনে নেওয়া যাক ১০ টি প্রয়োজনীয় ক্যামেরা এক্সেসোরিজ যা থাকা একান্ত প্রয়োজনঃ

১। লেন্স পরিষ্কার করার কিট- Lens Cleaning kit

আপনার ক্যামেরা এবং লেন্স কেনার পর ই যা থাকা আবশ্য তা হল একটি ক্লিনিং কিট। যদি আপনি আপনার গিয়ারটিকে পরিষ্কার, চকচকে এবং পালিশ রাখতে চান তাহলে এটা আশেপাশেই রাখবেন।

যেকোনো ধুলো বা আঙুলের ছাপ থেকে আপনার লেন্স পরিষ্কার করতে আপনাকে একটি মাইক্রো-ফাইবার কাপড় বেছে নিতে পারেন। সস্তা একটুকরো কাপড় কিন্তু আপনার খুব ব্যয়বহুল গিয়ারটিকে স্ক্র্যাচ থেকে বাঁচাতে পারে।
এছাড়াও, নিয়মিত একটি এয়ার ব্লোয়ার দিয়ে সেন্সর পরিষ্কার করুন, বিশেষ করে যদি আপনি নিয়মিত লেন্স পরিবর্তন করেন।

২। মেমোরি কার্ড- Memory Card

ক্যামেরার পরে আরেকটি তাৎক্ষণিক কেনাকাটা হল একটি মেমরি কার্ড, আপনি যত বেশি ফটোগ্রাফি করবেন, তত বেশি মেমরি কার্ডের প্রয়োজন হবে!

কার্ডের ক্ষমতা, আপনার ক্যামেরা যে চিত্রগুলি সরবরাহ করে তার আকার এবং আপনি যে ধরণের ফটোগ্রাফি করেন তার উপরও নির্ভর করে৷

এবং মেমরি কার্ড কেনার সময় ফরমেট এবং ক্যাপাসিটি দেখে কিনতে ভুলবেন না।

৩। ট্রাইপড- Tripod

প্রত্যেকেরই তাদের ক্যামেরার জন্য একটি ট্রাইপড কেনা উচিত। ছোট এবং হালকা ট্রাভেল ট্রাইপড বা একটি ভারী ফুল-সাইজড স্টুডিওর জন্য ও হতে পারে, এটি আপনার নিজের প্রয়োজনের উপর নির্ভর করবে।

যাই হোক না কেন, একটি ট্রাইপড অনেক কিছুর জন্য দরকারী হতে পারে। প্রথম এবং সবচেয়ে সাধারণ হল ক্যামেরার ঝাঁকুনি এড়ানো, আপনার ক্যামেরা স্থিতিশীল থাকলে দীর্ঘ সময় ছবি তোলার ক্ষেত্রে আপনাকে আরও স্বাধীনতা এবং সুবিধা দেবে।

ট্রাইপড কিনতে গেলে ম্যাটারিয়াল এর দিকে খেয়াল রাখতে পারেন। সাধারণত কার্বন ফাইবার এর ট্রাইপড এলুমিনিয়াম এর চেয়ে হালকা হয়ে থাকে, যদিও দামের ভিন্নতা থাকে। আর আউটডোর শ্যুটিং বা ফটোগ্রাফির জন্য ওজন একটা বড় ফ্যাক্ট।

৪। লেন্স ফিল্টার- Lens Filters

বাজারের সব লেন্স ফিল্টার ই একটির থেকে অন্যটি ভালো,

পোলারাইজিং ফিল্টার – এটি খুব ই প্রয়োজনীয় একটি ধরন লেন্সের জন। বেশিরভাগ প্রাকৃতিক দৃশ্যের বা Landscape এর জন্য ব্যবহৃত হয় কারণ এটি নীল আকাশকে আরো সুন্দর আর ডিপ দেখাতে সাহায্য করে করে। এই ফিল্টার সাধারনত দুটি বিভাগে বিভক্ত: CPL এবং লিনের.

UV ফিল্টার – আপনি যদি ফিল্ম ফটোগ্রাফি করেন তবে এটি একটি অপরিহার্য ক্যামেরা এক্সেসোরিজ আপনার জন্য।

৫। রিমোট শাটার- Remote Shutter Release

এই এক্সেসোরিসটি দ্বারা আপনি অনেক দূরে থেকে আপনার ক্যামেরা বন্ধ করতে পারবেন। আপনি যদি একটি সেলফ-পোর্ট্রেট করতে চান, টপ-ডাউন শুটিং করতে চান তাহলে অনেক হেল্পফুল হবে।

এক্ষেত্রে, আপনি wireless অথবা cable রিমোট শাটার রিলিজ যেকোনো একটা ব্যাবহার করতে পারেন নিজের পছন্দ মতন।

৬। ফ্লাশ- Flash

বিভিন্ন ক্যামেরায় বিভিন্ন ধরনের ফ্যাশ থাকলেও আপনি যখন আস্তে আস্তে প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার হয়ে উঠবেন তখন চেষ্টা করবেন আরো কিভাবে সুন্দর ভাবে ফটোগ্রাফিক করা যায়।

সেক্ষেত্রে নিজের স্ট্যুডিও এবং তাতে নানা ধরনের আলোর ব্যবস্থা এবং ব্যালান্স করতে বিভিন্ন ধরনের ফ্ল্যাশ ব্যবহার করতে পারেন। Softboxes, Arm brackets অনেকেই ব্যাবহার করে থাকে।

৭। রিফ্লেক্টর- Reflectors

আলো ছবি তোলার ক্ষেত্রে একটি অবিচ্ছেদ্য ভূমিকা পালন করে, আপনি যে ফটোগ্রাফি ঘরানায় কাজ করেন না কেন। আলোর রিফ্লেক্টর হল আপনার আলোর অবস্থা নিয়ন্ত্রণ করার একটি সাশ্রয়ী উপায়। এতে আপনার কোনো বৈদ্যুতিক প্লাগইন বা আলোর প্রয়োজন নেই। আপনি আপনার কাছে থাকা পরিবেষ্টিত আলোকে ম্যানিপুলেট করেই এই কাজ করতে পারেন।

আপনি স্টুডিওতে বা আউটডোর এও রিফ্লেক্টর ব্যবহার করতে পারেন। Portrait, Fashion, Product Photography যে কোনো টির ক্ষেত্রেই এই এক্সেসোরিজটি দারুন ভাবে আপনাকে সাহায্য করবে কোয়ালিটিফুল আউটকাম এর জন্য।

৮। এক্সট্রা ব্যাটারি- Extra Batteries and Battery Grip

দীর্ঘক্ষণ ফটোগ্রাফি যারা করেন, সেটা আউটডোর শ্যুট হোক বা ইনডোর ক্যামেরার চার্জ কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ! এক্ষেত্রে এক্সট্রা ব্যাটারি আপনি ক্যারি করতে পারেন।

এছাড়া একটি ব্যাটারি গ্রিপ পাওয়ার এর কথা ও বিবেচনা করে দেখতে পারেন। একটি ব্যাটারি গ্রিপ দিয়ে আপনি আপনার অতিরিক্ত ব্যাটারিগুলি ক্যামেরার সাথে সংযুক্ত করতে পারবেন।

৯। ফটো এডিটিং সফটওয়্যার- Photo-editing Software

আপনার ফটোগ্রাফি স্ট্যান্ডার্ড বা ইমেজ ম্যানিপুলেশন/রিটাচিংয়ের অভিজ্ঞতা যাই হোক না কেন, সমস্ত ফটোগ্রাফারদের ফটো-এডিটিং সফ্টওয়্যার থাকা প্রয়োজনীয় এক্সেসোরিজ এর ভেতর ই অন্তর্ভুক্ত বলা চলে।

সুন্দর, ঝকঝকে, কালারফুল এস্থেটিক ফটোগ্রাফির জন্য Pixlr, Adobe lightroom, Adob photoshop express, Luminar, Fotor, Paintshop pro আপনার রুচিমতন এমন কিছু সফটওয়্যার ব্যাবহার করতে পারতে পারেন!

১০। ক্যামেরা ব্যাগ- Camera Bags

ক্যামেরা ব্যাগ বিভিন্ন স্টাইলের হয়ে থাকে। আপনি আপনার পছন্দমতো ব্যাকপ্যাক, সোল্ডার ব্যাগ, হোলস্টার ব্যাগ বা স্লিং ব্যাগ বেছে নিতে পারেন।

ক্যামেরা ব্যাগে বিবেচনা করার ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল গুণমান যেহেতু আপনি বেশ মূল্যবান এবং সেন্সিটিভ বস্তু রাখবেন।

কোয়ালিটির সাথে সাইজ এবং ওজনও খেয়াল রাখবেন। লক্ষ্য রাখবেন ক্যামেরাটি ফিট হচ্ছে কিনা এবং একই সাথে সাহজে বহনযোগ্য কিনা।

ক্যামেরাকে আরো ভালো প্রটেকশন বা কার্যক্ষমতা বাড়াতে অত্যাবশকীয় এই এক্সেসোরিজ গুলো কেনার সময় অবশ্যই গুণ, মান এবং রুচিসম্মত কতটুকু তা দেখে কিনবেন। এধরণের জিনিসপত্র কিন্তু একই সাথে আপনার ব্যক্তিত্ত্ব এর ই প্রতিফলক!

আরও পড়ুন >> ইসলামী ব্যাংক এর সহজ লোন সুবিধা । IBBL Easy Loan