বাগধারা কাকে বলে? ২০০টি বাগধারা ।। বাংলা ব্যাকরণ

Spread the love

বাগধারা কাকে বলে? – বাক্যের বর্গ যখন বাচ্যার্থ বা আক্ষরিক অর্থ ছাপিয়ে বিশেষ কোনাে অর্থ প্রকাশ করে, তখন তাকে বাগধারা বলে। বাগ্ধারার প্রয়ােগে ভাষা প্রাণবন্ত হয় এবং বাক্য অধিক ব্যঞ্জনা সৃষ্টি করতে পারে। বাগধারা যেহেতু আক্ষরিক অর্থ ধারণ করে না, সেহেতু বাগধারা ঠিক কী অর্থ প্রকাশ করে ভাষা-ব্যবহারকারীকে সে ব্যাপারে সচেতন থাকতে হয়।

অক্কা পাওয়া (মারা যাওয়া): খারাপ লােকটা আরাে আগেই অক্কা পেতে পারত।
অক্ষরে অক্ষরে (যথাযথ): দেশের প্রতি আমাদের দায়িত্ব আমরা অক্ষরে অক্ষরে পালন করতে চাই।
অদৃষ্টের পরিহাস (ভাগ্যের খেলা): যানজট অদৃষ্টের পরিহাস নয়, মানুষেরই তৈরি।
অনধিকার চর্চা (অপরের বিষয়ে হস্তক্ষেপ): অনধিকার চর্চা তার রােগ, সব কিছুতেই কথা বলা চাই।
অন্ধকার দেখা (দিশেহারা হয়ে পড়া): কাজের চাপে চারদিকে অন্ধকার দেখছি।
অন্ধের যষ্টি (একমাত্র অবলম্বন): ছেলেটাই ছিল বিধবার অন্ধের যষ্টি।
অমাবস্যার চাদ (দুর্লভ বস্তু): তােমার দেখাই পাই না আজকাল, একেবারে অমাবস্যার চাঁদ হয়ে গেলো।
অরণ্যে রােদন (নিষ্ফল অনুনয়): কৃপণ লােকের কাছে কিছু চাওয়া আর অরণ্যে রােদন করা একই কথা।
অর্ধচন্দ্র (ঘাড় ধাক্কা দেয়া): চাইলাম চাঁদা, পেলাম অর্ধচন্দ্র।

আরও পড়ুন >> বাংলা ব্যাকরণের ১০০টি সন্ধি বিচ্ছেদ

আঁতে ঘা (খুব কষ্ট): তােমার প্রতিবেদনে ওইসব লােকের আঁতে ঘা লেগেছে।
আকাশ কুসুম (অসম্ভব কল্পনা): অল্প বিনিয়ােগে বেশি লাভের আশা! আকাশ কুসুম চিন্তা ছাড়া কিছু নয়।
আগুন নিয়ে খেলা (বিপজ্জনক ঘটনার আশঙ্কা তৈরি করা): তুমি আমার সাথে আগুন নিয়ে খেলতে এসাে না।
আঙুল ফুলে কলাগাছ (হঠাৎ বড়ােলােক হওয়া): আঙুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে তাে, তাই কথাবার্তার ধরন বদলে গেছে।
আঠারাে মাসে বছর (দীর্ঘসূত্রিতা): সাত দিনের মধ্যে ও করবে এই কাজ! ওর তাে আঠারাে মাসে বছর।
আদা-জল খেয়ে লাগা (প্রাণপণ চেষ্টা করা); এতদিন কাজটা ফেলে রেখেছিলে, এবার আদা-জল খেয়ে লেগে দেখাে শেষ করতে পারাে কিনা।
আমড়া কাঠের টেকি (অপদার্থ): তার মতাে আমড়া কাঠের ঢেকি লাখে একটা মেলে।
আষাঢ়ে গল্প (আজগুবি গল্প): বর্ষাকালে আষাঢ়ে গল্প না হলে কি আসর জমে?
ইচড়ে পাকা (অকালপক্ক): ইচড়ে পাকা ছেলেমেয়েদের দিয়ে এমন কাজ করানাে কঠিন।
ইতর বিশেষ (পার্থক্য): দুজনের কাজের মাঝে অনেক ইতর বিশেষ আছে।

উড়নচণ্ডী (বেহিসেবি): যেমন উড়নচণ্ডী মেয়ে তেমন উড়নচণ্ডী জামাই।
উড়ে এসে জুড়ে বসা (অপ্রত্যাশিতভাবে জায়গা দখল করা): উড়ে এসে জুড়ে বসা লােকের মুখে অনধিকার চর্চার উপদেশ মানায় না।
উড়ােকথা (গুজব): উড়ােকথায় কান দিয়াে না।
উড়োচিঠি (বেনামি চিঠি): এমন উড়ােচিঠির উপর ভিত্তি করে তদন্ত করা ঠিক হবে না।
উত্তম-মধ্যম (বেদম প্রহার): সব চোরের কপালেই উত্তম-মধ্যম লেখা থাকে, তা থেকে রেহাই নেই।
উনিশ-বিশ (সামান্য পার্থক্য): বইটির প্রথম সংস্করণ আর দ্বিতীয় সংস্করণে পার্থক্য উনিশ-বিশ।
এককথার মানুষ (দৃঢ়সংকল্প ব্যক্তি): আমি এককথার মানুষ; বলেছি যখন, করেই দেখাব।
এক ঢিলে দুই পাখি (এক প্রচেষ্টায় দুই ফল): বুঝেছি, তুমি এক ঢিলে দুই পাখি মারতে চাও।
এলাহি কাণ্ড (বিরাট আয়ােজন): এমন এলাহি কাণ্ড করে বসেছ! অথচ কিনা সামান্য জন্মদিনের অনুষ্ঠান।
এসপার ওসপার (চূড়ান্ত মীমাংসা): আজ ওর সঙ্গে এসপার ওসপার করে তবেই ঘরে ফিরব।

Google Newsবিস্তারিত জানতে Google News অনুসরণ করুন

 

ওজন বুঝে চলা (আত্মসম্মান রক্ষা করা): নিজের ওজন বুঝে চললে এরকম সম্মানহানি হতাে না।
কচুকাটা করা (ধ্বংস করা): ওর সাথে লাগতে যেও না, কচুকাটা করে ছাড়বে।
কড়ায় গন্ডায় (চুলচেরা হিসাব): হিসাবের খাতায় সব লিখে রেখেছি, সময়মতাে কড়ায় গন্ডায় আদায় করা যাবে।
কথার কথা (গুরুত্বহীন কথা): এটা একেবারেই কথার কথা, মানতেই হবে এমন নয়।
কপাল ফেরা (সৌভাগ্য লাভ): বহু কাল দুঃখে কাটিয়ে শেষ পর্যন্ত তার কপাল ফিরল।
কলমের এক খোচা (লিখিত আদেশ): কলমের এক খোচায় দুবৃত্তদের চাকরি চলে গেল।
কলুর বলদ (একটানা খাটুনি): মা সারাজীবন সংসারে কলুর বলদের মতাে খেটেই গেলেন।
কাঁচা পয়সা (নগদ উপার্জন): উঠতি ধনীদের কাঁচা পয়সার গরমে বাজারে সব কিছুর দাম বাড়ছে।
কাগজে কলমে (লিখিতভাবে): কাগজে-কলমে সব প্রমাণ রয়েছে।

কাছাটিলা (অসাবধান): এমন কাছাঢিলা লােক দিয়ে দারােয়ানের কাজ হবে না।
কাঠখােট্টা (নীরস ও অনমনীয়): এমন কাঠখােট্টা লােককে দিয়ে রাজনীতি হয় না।
কানকাটা (নির্লজ্জ): তার মতাে কানকাটা লােক এমন মিষ্টি গালিতে অপমান বােধ করে না।
কান খাড়া করা (ওত পেতে থাকা): সাবধানে কথা বলাে, আশেপাশে কেউ হয়তাে কান খাড়া করে আছে।
কান ভাঙাননা (পরামর্শ): ও নিশ্চয় আমার নামে কান ভাঙিয়েছে! আর তুমিও তা বিশ্বাস করে বসে আছ।
কিস্তিমাত করা (সফলতা লাভ): সবচেয়ে বড়াে পুরস্কারটা পেয়ে সে একেবারে কিস্তিমাত করেছে।
কুয়াের ব্যাঙ (সংকীর্ণমনা লােক): ও রকম কুয়াের ব্যাঙ দিয়ে নতুন কিছু করা যাবে না।
কৈ মাছের প্রাণ (যা সহজে মরে না): শত প্রতিকূল পরিবেশেও এরা কৈ মাছের প্রাণ হয়ে বাঁচে।
কোমর বাঁধা (দৃঢ় সংকল্প): কোমর বেঁধে কাজে নেমে পড়াে, সফলতা আসবেই।
খয়ের খা (চাটুকার): খয়ের খা থেকে একটু সাবধান থেকো।

খেজুরে আলাপ (অকাজের কথা): কাজের সময়ে খেজুরে আলাপ করতে ভালাে লাগে না।
গড্ডলিকা প্রবাহ (অন্ধ অনুকরণ): গড্ডলিকা প্রবাহে গা না ভাসিয়ে বুদ্ধি দিয়ে বিচার করে পথ চলতে শেখাে।
গভীর জলের মাছ (খুব চালাক): ওর মতাে গভীর জলের মাছকে নাগালে আনা কঠিন।
গরম গরম (তৎক্ষণাৎ): সাংবাদিকরা গরম গরম খবর পেলে খুব খুশি হয়।
গা ঢাকা দেওয়া (পলায়ন করা): কোম্পানির টাকা আত্মসাৎ করে এখন সে গা ঢাকা দিয়েছে।
গায়ে পড়া (অযাচিত): গায়ে পড়ে কোনাে কাজ করতে যেও না বাপু।
গায়ে ফুঁ দিয়ে বেড়ানাে (ফাঁকির মনােভাব): গায়ে ফু দিয়ে বেড়ানাে যার স্বভাব, তাকেও দলে রাখতে হলাে।
গুড়ে বালি (আশায় নৈরাশ্য): ঝড়ের কারণে আম ব্যবসায়ীদের লাভের আশা এবার গুড়ে বালি।
গোঁফ খেজুরে (খুব অলস): গোঁফ খেজুরে লোককে দিয়ে এসব কাজ হবে না।
গােড়ায় গলদ (শুরুতেই ভুল): গােড়ায় গলদ করলে হিসাব মিলবে কী করে?

আরও পড়ুন >> আপনার স্মার্টফোন কিভাবে দ্রুত চার্জ করবেন

গােল্লায় যাওয়া (নষ্ট হওয়া): সৎ সঙ্গে মিশলে গােল্লায় যাওয়া থেকে রক্ষা পাবে।
ঘােড়া ডিঙিয়ে ঘাস খাওয়া (মধ্যবর্তীকে অতিক্রম করে কাজ করা): দাপ্তরিক কাজে ঘােড়া ডিঙিয়ে ঘাস খেতে যেয়াে না, বিপদে পড়বে।
ঘােড়ার ডিম (কিছুই না): আস্ফালন কোরাে না, তুমি আমার ঘােড়ার ডিম করতে পারবে।
চশমখাের (বেহায়া): এমন চশমখাের লােকের সাথে আমি মিশি না।
চিনির বলদের মতাে ঘানি টানা (ফল লাভে অংশীদার না হওয়া): সারাজীবন চিনির বলদের মতাে ঘানি টানলে, বিনিময়ে কিছুই পেলে না।
চিনে জোক (নাছােড়বান্দা): লােকটি এ কাজ পাওয়ার জন্য একেবারে চিনে জোকের মতাে লেগে আছে।
চুনােপুঁটি (সামান্য ব্যক্তি): সকলকে চুনােপুঁটি ভেবে অবজ্ঞা করা উচিত নয়।
চুলােয় যাওয়া (নষ্ট হওয়া): ছােট্ট একটা ভুলের জন্য এমন পরিশ্রমের কাজটা শেষ পর্যন্ত চুলােয় গেল ।
চোখ পাকানাে (রাগ দেখানাে); আমার দিকে এমন চোখ পাকানাের কারণ কী?
চোখ বুজে থাকা (ভূমিকা না রাখা): প্রতিবেশীর বিপদে চোখ বুজে থাকতে নেই।

চোখে সরষে ফুল দেখা (বিপদে দিশেহারা হওয়া): পরীক্ষা সামনে, তাই চোখে সরষে ফুল তাে দেখবেই।
ছা-পােষা (অত্যন্ত গরিব): ছা-পােষা লােক আমি, দেশ নিয়ে ভাবার সময় কোথায়?
ছেলের হাতের মােয়া (সহজলভ্য): সবকিছু ছেলের হাতের মােয়া ভেবাে না।
জগাখিচুড়ি (বিশৃঙ্খল): সবকিছু জগাখিচুড়ি করে রেখেছ দেখছি!
জিলাপির প্যাচ (কূটবুদ্ধি): বাইরে থেকে দেখতে সরল হলেও লোকটির অন্তরে জিলাপির প্যাচ।
ঝােপ বুঝে কোপ মারা (অবস্থা বুঝে সুযােগ গ্রহণ): তিনি ঝােপ বুঝে কোপ মেরে সফল হয়েছেন।
টইটম্বুর (ভরপুর): বৃষ্টির পানিতে পুকুরটা একেবারে টইটম্বুর হয়ে আছে।
টনক নড়া (সজাগ হওয়া): আগে কথা বললে না, এতক্ষণে তােমার টনক নড়ল?
টাকার গরম (বিত্তের অহংকার): সব সময়ে টাকার গরম দেখানাে ঠিক নয়।
ঠোট কাটা (বেহায়া): আজকাল ঠোটকাটা লােকের অভাব নেই।।

ডান হাতের ব্যাপার (খাওয়া): আগে ডান হাতের ব্যাপারটা সেরে নেই, পরে অন্য কথা।
ডুব মারা (পালিয়ে যাওয়া): যেই আমি বিপদে পড়লাম, অমনি তােমরা সবাই ডুব মারলে।
ডুমুরের ফুল (অদৃশ্য বস্তু): তুমি দেখি একেবারে ডুমুরের ফুল হয়ে গেছ।
তালকানা (কাণ্ডজ্ঞানহীন): এমন তালকানা লােকের সাথে চলা যায় না।
তালপাতার সেপাই (ছিপছিপে): শরীরের প্রতি যত্ন নাও, দিন দিন তুমি তাে তালপাতার সেপাই হয়ে যাচ্ছ।
তাসের ঘর (স্বল্পস্থায়ী): বাবার চাকরি যাওয়ায় মায়ের সব স্বপ্ন তাসের ঘরের মতাে ভেঙে গেল।
তিলকে তাল করা (ছােটোকে বড়াে করা): তিলকে তাল করা ওর অভ্যাসে পরিণত হয়েছে।
তীর্থের কাক (সুযােগ সন্ধানী): শরণার্থীরা রিলিফের চালের জন্য তীর্থের কাকের মতাে বসে আছে।
তেল মাখানাে (তােষামােদ): সাহেবকে তেল মাখানাের লােকের অভাব নেই।
থতমত খাওয়া (অপ্রস্তুত হয়ে পড়া): ক্লাসে হঠাৎ নতুন শিক্ষক দেখে সবাই থতমত খেয়ে গেলাম।

দা-কুমড়া সম্পর্ক (শত্রুতা): বাপ-চাচাদের দা-কুমড়া সম্পর্ক এখন চাচাতাে ভাইদের মধ্যে টিকে আছে।
দিবাস্বপ্ন (অলীক কল্পনা): দিবাস্বপ্ন দেখতে ভালােবাসে না এমন লােক মেলা ভার।
দুধের মাছি (সুসময়ের বন্ধু): সুযােগসন্ধানীরা সব সময়ে দুধের মাছির মতাে ক্ষমতার আশপাশে ঘােরে।
ধরাকে সরা জ্ঞান (অহংকার করা): তুমি ধরাকে সরা জ্ঞান করে সাধারণ মানুষের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করছ!
ননীর পুতুল (শ্রমবিমুখ): ছেলেটাকে একেবারে ননীর পুতুল বানিয়ে রেখেছে, কোনাে কাজ করতে দেয় না।
নয়-ছয় (অপব্যবহার): তুমি নয়-ছয় করে টাকাগুলাে শেষ কোরাে না।
পটল তােলা (মারা যাওয়া): আজ বাদে কাল পটল তুলবে, অথচ তার মিথ্যাচার গেল না।
পুঁটি মাছের প্রাণ (ছােটো মন): পুঁটি মাছের প্রাণ নিয়ে নেতা হওয়া যায় না।
বইয়ের পােকা (সব সময়ে বই পড়ে এমন): পরিচিত লােকদের কাছে বইয়ের পােকা হিসেবে তার নাম
আছে।
বর্ণচোরা (ভণ্ড): বর্ণচোরা লােকেরা খুব সহজেই অন্যদের বিপদে ফেলে।

ভিডিও >> সাপের শঙ্খ লাইভ ভিডিও || Snake Dance Live

বাঘের দুধ (অসম্ভব বস্তু): টাকায় কী না হয়? বাঘের দুধ মেলে।
বিনা মেঘে বজ্রপাত (অপ্রত্যাশিত বিপদ): সন্তানের মৃত্যুসংবাদ তার কাছে বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতাে।
বুদ্ধির টেকি (নির্বোধ): তােমার বিবেচনার বলিহারি, অমন বুদ্ধির চেঁকির কাছে গেছ বুদ্ধি নিতে।
ভরাডুবি (সর্বনাশ): ব্যাবসা তাে ভালােই গুছিয়েছিলে, এমন ভরাডুবি হলাে কীভাবে?
ভিজে বিড়াল (কপট ব্যক্তি): সাবধান, আমাদের চারদিকে ভিজে বিড়ালের অভাব নেই।
ভিটায় ঘুঘু চরানাে (নিঃস্ব করা): ও হুমকি দিয়ে বলেছে, আমার ভিটায় নাকি ঘুঘু চরাবে।
উঁইফোড় (নতুন আগমন): ভুইফোড় সাংবাদিকদের কারণে প্রকৃত সাংবাদিকের সম্মান ক্ষুন্ন হচ্ছে।
মগের মুল্লক (অরাজকতা): দেশ তাে আর মগের মুল্লুক হয়ে যায়নি যে, এমন দুর্নীতি করে পার পেয়ে যাবে।
মণিকাঞ্চন যােগ (উপযুক্ত মিলন): যেমন বর তেমন কনে – এ যেন মণিকাঞ্চন যােগ।
মানিক জোড় (গভীর সম্পর্ক): সহকর্মীদের এমন মানিক জোড় খুব কমই দেখা যায়।
লেফাফা দুরন্ত (বাইরে পরিপাটি): লােকটি লেফাফা দুরস্ত হলে কী হবে, আসলে মূর্খ।
সপ্তমে চড়া (প্রচণ্ড উত্তেজনা): এসব দুর্নীতি দেখে তার মেজাজ সপ্তমে চড়ে গেল।
সােনায় সােহাগা (উপযুক্ত মিলন): বর-কনেকে খুব সুন্দর মানিয়েছে, এ যেন সােনায় সােহাগা।

Check Also

একটি ঝড়ের রাত বাংলা রচনা ক্লাস 10

Spread the loveএকটি ঝড়ের রাত – বিভিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে মানুষ বিচিত্র অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *