সন্ধি কাকে বলে? কত প্রকার ও উদাহরণসহ ব্যাখ্যা

134
সন্ধি কাকে বলে
সন্ধি কাকে বলে

সন্ধি কাকে বলে?

পাশাপাশি ধ্বনির মিলনকে সন্ধি বলে। পৃথিবীর বহু ভাষায় পাশাপাশি শব্দের একাধিক ধ্বনি নিয়মিতভাবে সন্ধিবদ্ধ হলেও বাংলা ভাষায় তা বিরল। যেমন আমি এখন চা আনতে যাই বাংলা ভাষার এই বাক্যটিকে সন্ধির সূত্র অনুযায়ী ‘আম্যেখন চানতে যাই’ বলা যায় না। তবে বাংলা ভাষায় উপসর্গ, প্রত্যয় ও সমাস প্রক্রিয়ায় শব্দগঠনের ক্ষেত্রে সন্ধির সূত্র কাজে লাগে।

সন্ধি কত প্রকারঃ

সন্ধি তিন প্রকার, যথাঃ স্বরসন্ধি, ব্যঞ্জনসন্ধি ও বিসর্গসন্ধি।

স্বরসন্ধি কি ও উদাহরণসহ ব্যাখ্যা

স্বরসন্ধি দ্বরধ্বনির সঙ্গে স্বরধ্বনির মিলনকে স্বরসন্ধি বলে।

উদাহরণঃ
১। অ/আ+অ/আ = আ। যেমন – উত্তর+অধিকার = উত্তরাধিকার, আশা+অতীত = আশাতীত।
২। ই/ঈ+ই/ঈ = ঈ। যেমন – অতি+ইন্দ্রিয় = অতীন্দ্রিয়, পরি+ঈক্ষা = পরীক্ষা।
৩। উউ+উ/ঊ = উ। যেমন – মরু+উদ্যান = মরূদ্যান।
৪। অ/আ+ই/ঈ = এ। যেমন – শুভ+ইচ্ছা = শুভেচ্ছা।
৫। অ/আ+উ/ঊ = ও। যেমন – সূর্য+উদয় = সূর্যোদয়।
৬। অ/আ+ঋ = অর্। যেমন – মহা+ঋষি = মহর্ষি
৭। অ/আ+ঋত = আরু। যেমন – শীত+ঋত = শীতার্ত।
৮। অ/আ+এ/ঐ = ঐ। যেমন – জন+এক = জনৈক।
৯। অ/আ+ও/ঔ = ঔ। যেমন – বন+ওষধি = বনৌষধি।
১০। ই/ঈ+অন্য স্বর = যু+স্বর। যেমন – প্রতি+এক = প্রত্যেক।
১১। উউ+অন্য স্বর = বৃ+স্বর। যেমন – সু+অল্প = স্বল্প।
১২। ঋ+অন্য স্বর = বৃ+স্বর। পিতৃ+আলয় = পিত্রালয়।
১৩। এ+ অন্য স্বর = অয়+স্বর। যেমন – শে+অন = শয়ন।
১৪। ঐ+ অন্য স্বর = আয়ু+স্বর । যেমন – নৈ+অক = নায়ক।
১৫। ও+ অন্য স্বর = অব্+স্বর। যেমন – গাে+আদি = গবাদি।
১৬। ঔ+ অন্য স্বর = আবৃ+স্বর। যেমন – নৌ+ইক = নাবিক।

আরও পড়ুন >> বীজগণিতের সহজ সূত্রাবলী ।। zohabd লেখাপড়ায়

কিছু স্বরসন্ধি সূত্র অনুসরণ করে না, সেগুলোকে নিপাতনে সিদ্ধ স্বরসন্ধি বলে।
যেমন – কুল+অটা = কুলটা (সূত্র অনুসারে কুলাটা হওয়ার কথা)। গো+অক্ষ = গবাক্ষ (সূত্র অনুসারে গবক্ষ হওয়ার কথা) ইত্যাদি।

ব্যঞ্জনসন্ধি কি ও উদাহরণসহ ব্যাখ্যা

স্বরে-ব্যঞ্জনে, ব্যঞ্জনে-স্বরে ও ব্যঞ্জনে-ব্যঞ্জনে যে সন্ধি হয়, তাকে ব্যঞ্জনসন্ধি বলে।

উদাহরণঃ

ক. স্বরব্যঞ্জন – স্বর+ছ = স্বর+চ্ছ। যেমন – কথা+ছলে = কথাচ্ছলে, পরি+ছেদ = পরিচ্ছেদ। এখানে পূর্ববর্তী স্বরের প্রভাবে পরবর্তী ছ-এর জায়গায় চ্ছ হয়েছে।
খ. ব্যঞ্জন+স্বর – কচ/ট/ত/প+স্বর = গ/জ/ড(ড)/দব। যেমন – দিক্+অন্ত = দিগন্ত, সৎ+উপায় = সদুপায় স্বরধ্বনিগুলো ঘোষবৎ হয়। এখানে ঘোষবৎ স্বরধ্বনির (ক, চ, ট, ত, প) প্রভাবে পূর্ববর্তী অঘোষ ধ্বনি পরিবর্তিত হয়ে ঘোষধ্বনিতে (গ, জ, ড, দ, ব) পরিণত হয়।
গ. ব্যঞ্জন+ব্যঞ্জন – ব্যঞ্জনসন্ধিতে একটি ধ্বনির প্রভাবে পার্শ্ববর্তী ধ্বনি পরিবর্তিত হয়ে যায়।

উদাহরণঃ
চলৎ+চিত্র = চলচ্চিত্র (এখানে চ-এর প্রভাবে ত হয়েছে চ)।
বিপদজনক = বিপজ্জনক (এখানে জ-এর প্রভাবে দ হয়েছে জ)।
উৎ+লাস = উল্লাস (এখানে ল-এর প্রভাবে ত হয়েছে ল)।
বাক্+দান = বাগদান (এখানে ঘোষধ্বনি দ-এর প্রভাবে ক হয়েছে গ)।
তৎ+মধ্যে = তন্মধ্যে (এখানে নাসিক্য ধ্বনি ম-এর প্রভাবে ত হয়েছে ন)।
শম্+কা = শঙ্কা (এখানে কণ্ঠ্যধ্বনি ক-এর প্রভাবে ম হয়েছে )।
সম্+চয় = সঞ্চয় (এখানে তালব্যধ্বনি চ-এর প্রভাবে ম হয়েছে ঞ)।
সমৃ+তাপ = সন্তাপ (এখানে দন্ত্যধ্বনি ত-এর প্রভাবে ম হয়েছে ন)।
সম্মান = সম্মান (এখানে ওষ্ঠ্যধ্বনি ম-এর প্রভাবে ম অপরিবর্তিত রয়েছে)।
ষ+থ = ষষ্ঠ (এখানে মূর্ধন্যধ্বনি ষ-এর প্রভাবে থ হয়েছে ঠ)।

কিছু ব্যঞ্জনসন্ধি নিয়ম ছাড়া হয়, সেগুলোকে নিপাতনে সিদ্ধ ব্যঞ্জনসন্ধি বলে। যেমন – গো+পদ = গোষ্পদ, এক+দশ = একাদশ, বৃহৎ+পতি = বৃহস্পতি ইত্যাদি।

আরও পড়ুন >> পরকাল সবারই আসল ঠিকানা !! মৃত্যু অনিবার্য

বিসর্গসন্ধি কি ও উদাহরণসহ ব্যাখ্যা

বিসর্গসন্ধি বিসর্গসন্ধিতে বিসর্গের কয়েক ধরনের পরিবর্তন লক্ষ করা যায়ঃ

ক. বিসর্গ বিদ্যমান থাকে: মনঃ+কষ্ট = মনঃকষ্ট, অধঃ+পতন = অধঃপতন, বয়ঃসন্ধি = বয়ঃসন্ধি
খ. বিসর্গ ‘ও’ হয়ে যায় মনঃ+যোগ = মনোযোগ, তিরঃ+ধান = তিরোধান, তপঃ+বন = তপোবন
গ. বিসর্গ ‘’ হয়ে যায় নিঃ+আকার = নিরাকার, পুনঃ+মিলন = পুনর্মিলন, আশীঃ+বাদ = আশীর্বাদ
ঘ. বিসর্গ শ/ষ/সূ হয়: নিঃ+চয় = নিশ্চয়, দুঃ+কর = দুষ্কর, পুরঃ+কার = পুরস্কার।
ঙ. কিছু কিছু সন্ধিতে পূর্ববর্তী স্বর দীর্ঘ হয়: নিঃ+রব = নীরব, নিঃ+রস = নীরস, নিঃ+রোগ = নীরোগ।

কিছু অনুশীলনী সঠিক উত্তরে টিক বাহির করঃ

১। পাশাপাশি ধ্বনির মিলনকে বলে?
ক. একত্রীকরণ খ. সন্নিবেশ গ. সমাস। ঘ, সন্ধি
২। অ/আ + অ/আ = আ সূত্রের উদাহরণ কোনটি?
ক. উত্তরাধিকার খ. জনৈক গ, অতীন্দ্রিয় ঘ. নাবিক
৩। স্বরের সঙ্গে স্বরের যে সন্ধি হয় তাকে স্বরসন্ধি বলে?
ক. স্বরসন্ধি খ. ব্যঞ্জনসন্ধি গ. বিসর্গসন্ধি ঘ. স্বরব্যঞ্জন সন্ধি
৪। গো + আদি = গবাদি – কোন সূত্রে সিদ্ধ?
ক, ও + অন্য স্বর = অ + স্বর খ, এ + অন্য স্বর= অয়ু + স্বর।
গ, ঋ + অন্য স্বর = বৃ + স্বর ঘ. উ/ঊ + অন্য স্বর = ব + স্বর
৫। ব্যঞ্জনসন্ধি কতভাবে হতে পারে?
ক. এক খ. দুই খ. তিন ঘ, চার

আরও পড়ুন >> আপনার ফোনের স্টোরেজ শেষ কি করবেন ভাবছেন !!

৬। পরিচ্ছেদ কোন নিয়মে ব্যঞ্জনসন্ধি?
ক, স্বর + স্বর খ, স্বর + ব্যঞ্জন গ. ব্যঞ্জন + ব্যঞ্জন ঘ. ব্যঞ্জন + স্বর
৭। নিচের কোনটিতে জ-এর প্রভাবে ত হয়েছে জ?
ক. সন্ধ্যা খ. উজ্জ্বল গ. বিপদমূলক ঘ, চলচ্চিত্র
৮। নিচের কোনটি বিসর্গ সন্ধির উদাহরণ?
ক. ষষ্ঠ খ. সমান খ. সম্মান গ. স্বচ্ছ ঘ. মনোযোগ
৯। নিচের কোনটিতে বিসর্গ ও হয়ে গেছে?
ক. নীরোগ খ. আরোগ্য গ. তিরোধান ঘ, ভৌগোলিক
১০। নিপাতনে সিদ্ধ ব্যঞ্জনসন্ধি কোনটি?
ক. নায়ক খ. পিত্রালয় গ. শুভেচ্ছা ঘ. একাদশ

আরো পড়ুন >> Dhaka Bank Gold Account – গোল্ড হিসাবের সুবিধা