লালপুরে সাব রেজিস্টারের সেচ্ছাচারিতায় বিপাকে সাধারণ মানুষ

নাটোরের লালপুর উপজেলা সাব রেজিস্টার ওবায়েদ উল্লাহ্ একক সেচ্ছাচারিতায় বিপাকে পড়েছে উপজেলার সাধারণ মানুষ।

এতে যেমন গনদুুর্ভোগ বেড়েছে অপরদিকে জমি রেজিস্ট্রি না হওয়ায় সরকারী রজস্ব আদায় বন্ধ ও দলিল লেখকরা মানবেতার জীবনযাপন করছে।

আজ সোমবার (৮জুন) দুপুর ১টার দিকে উপজেলা সাব রেজিস্ট্রি অফিসে গিয়ে দেখা জানাযায়, আজ জমি রেজিস্ট্রির দিন থাকলেও সাব রেজিস্টার ওবায়েদ উল্লাহর অনুপস্থিত থাকার করনে মহরী ও জমি দাতা গ্রহিতারা জমি রেজিস্ট্র্রি না করে বাড়ি ছিফরে যাচ্ছেন। অপরদিকে দুুপুুর ২টার দিকে সাব রেজিস্টারের স্বাক্ষরিত গত ৩১ মে তারিখের একটি বিজ্ঞপ্তি অফিসের দেওয়ালে সাটাচ্ছেন অফিস সহকারী। বিজ্ঞপ্তিতে লিখা আছে নাটোর জেলার লালপুর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের সনদ প্রাপ্ত দলিল লেখক এবং সর্বসাধারণের জ্ঞাতার্র্থে জানানো যাইতেছে যে, যেহেতু আমি নি¤œ স্বাক্ষরকারী লালপুর সাব রেজিস্ট্র্রি অফিস ছাড়া ও অন্যান্য অফিসে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করে আসিতেছি। সেহেতু লালপুর সাব-রেজিস্ট্রি অফিস সপ্তাহে ২ দিন বুুধবার ও বৃৃহস্পতিবার অফিসের বিবিধ কার্য পরিচালনা করা হইবে।’

এবিষয়ে বক্তব্য নেওয়ার জন্য অফিসের ভিতরে গিয়ে সাব রেজিস্টার কে না পেয়ে তার মোবাইল (০১৯১৮১৩২৯৩০) নাম্বারে একাধিক বার ফোন করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। ৩১ তারিখের বিজ্ঞপ্তি ৮তারিখে কেন প্রকাশ বা নোটিশ বোর্ডে লাগাচ্ছেন জানতে চাইলে তার অফিস সহকারী সাজদার আলীও এর কোন সদউত্তর দিতে পারেন নি।

এসময় লালপুর উপজেলা দলিল লেখক সমিতির যুগ্ন আহবায়ক সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘দীর্ঘ দীন থেকে লালপুর উপজেলা সাব রেজিস্টার ওবায়েদ উল্লাহ্ সাব রেজিস্টার অফিসে একক সেচ্ছাচারিতা চালিয়ে আসছেন। তার যখন ইচ্ছা হয় তিনি অফিসে আসেন তার ইচ্ছা না হলে তিনি আসেন না। তার এই সেচ্ছাচারিতার কারনে প্রায় এক বছর যাবত দলিল ফেরত বন্ধ আছে। নিয়োমিত দলিল রেজিস্ট্র্রি না হওয়ায় দীর্ঘদিন থেক লালপুর বাসী গণদুর্ভোগে পড়েছেন। অপরদিকে জমি রেজিস্ট্রি না হওয়ায় সরকারী রজস্ব আদায় বন্ধ ও দলিল লেখকরা মানবেতার জীবনযাপন করছে।’ তিনি আরো বলেন,‘দীর্ঘ ছুটির পরে গত ৩১ শে মে অফিস খুললেও আজ ৮ তারিখ এই পর্যন্ত সাব রেজিস্টার অনঅপুস্থিত থাকার কারনে রবিবার ও সোমবার রেজিস্ট্রি বন্ধ থাকে এতে শত শত মানুষ আর্থিক ও মানবিক ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এছাড়াও তিনি অফিসের নৈশপ্রহরীর মাধ্যমে অফিসের হাজিরা খাতা ও ফাইল থানার বাহিরে নিয়ে যান এবং তার অফিসিয়াল ক্ষমতা ব্যবহার করে তিনি অফিসের মহিলা কর্মচারী ও নকল নবিশদের সঙ্গে আপত্তিকর আচরন করেন।’

এর আগে মঙ্গলবার (০২ জুন) দুপুর ১টার দিকে উপজেলা সাব রেজিস্টার অফিসের সামনে সাব রেজিস্টারের একক সেচ্ছাচারিতা বিরুদ্ধে দলিল লেখক ও অফিস কর্র্মচারীরা মানববন্ধন স্মারক লিপি প্রদান করেন।

নাটোর প্রতিনিধি