লালপুরে একদিনে সর্বোচ্চ ৪৩জনের নমুনা সংগ্রহ, আক্রান্ত -১

নাটোরে লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন স্টাফ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় একদিনে সর্বোচ্চ ৪৩জনের নমুনা সংগ্রহ করেছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

আজ মঙ্গলবার (০৫ মে) নতুন ৪৩জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য নাটোর সিভিল সার্জনের নিকট পাঠিয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। সোমবার ৪মে রাতে লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ঐ কর্মী করোনা শনাক্ত হয়েছেন।

লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাক্তার আমিনুল ইসলাম নতুন ৪৩জনের নমুনা সংগ্রহের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ‘মঙ্গলবার (৫মে) পর্যন্ত উপজেলায় নতুন ৪৩ জনসহ মোট ১১৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য নাটোর সিভিল সার্জনের নিকট পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে ৩৬ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। আর ২মে শনিবারের ১৯জন নমুনার মধ্যে একজনের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। আর ৭৯জনের রিপোর্ট এখনো পেন্ডিং রয়েছে।’ তিনি আরো জানান, ‘সোমবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন টেলি মেডিসিনের সাপটিং পারর্সন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বর্তমানে টেলিমেডিসিন সেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। এছাড়া আক্রান্ত ব্যাক্তিকে আইসলিউশনে রাখা হয়েছে। এবং হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা স্বাভিক রয়েছে বলে তিনি জানান।’ এদিকে সংগৃহীত নমুনার রেজাল্ট দেরীতে আসার কারনে অনেকেই শংকিত হয়ে পড়েছেন।

লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মুল বানীন দ্যুতি জানান,‘লালপুর হাসপাতালের একজন স্টাফের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার খবর পেয়ে তৎক্ষণাৎ তার বাসস্থান পরিদর্শন করা হয়। আক্রান্ত ব্যক্তিকে লালপুর হাসপাতালের আইসলিউশনে রাখা এবং আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের কোয়ারান্টাইন নিশ্চিত করা হয়।’ তিনি আরো বলেন,‘ আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এছাড়াও আক্রান্ত ব্যাক্তিকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মালটা, লেবু, আনারসসহ বিভিন্ন ফল, বিস্কুট, টি ব্যাগ, পানি গরম করনের ফ্লাক্স সরবরাহ করা হয়েছে।’