পশু সম্পদ থাকলে কি যাকাত দিতে হবে? যাকাতের 10 টি নিয়ম ও গুরুত্ব

Spread the love

পশু সম্পদ – সাধারণভাবে মাঠে ময়দানে চরে বেড়ানো গৃহপালিত পশু বংশবৃদ্ধি ও দুধের জন্যে প্রতিপালিত হলে তাকে পরিভাষায় ‘সায়েমা’ বলে। এসব পশুর যাকাত দিতে হয়। যেসব পশু গোশত খাওয়ার জন্যে পালা হয় এবং বন্য পশু যেমন, হরিণ, নীল গাই প্রভৃতির উপর যাকাত নেই । তবে এ বন্য পশু যদি ব্যবসার জন্যে হয়, তাহলে তার উপর যাকাত দিতে হবে, যেমন ব্যবসায়ের মালের উপর যাকাত হয়।

ভেড়া-ছাগলের নিসাব ও যাকাতের হার

পশু সম্পদ – যাকাতের ব্যাপারে ভেড়া-ছাগল-দুম্বা সকলের একই হুকুম। সকলের একই নিসাব এবং যাকাতের হার একই। যদি কারো কাছে দুম্বাও থাকে এবং ছাগলও থাকে এবং উভয়ের নিসাব পূর্ণ হয়, তাহলে উভয়ের পৃথক পৃথক যাকাত দিতে হবে। আর যদি উভয়ের একত্র করলে নিসাব পূর্ণ হয়, তাহলে যার সংখ্যা বেশি হবে যাকাতে সেই পশুই দিতে হবে। উভয়ের সংখ্যা সমান হলে যেটা ইচ্ছা দেওয়া যায়।

Google News  বিস্তারিত জানতে Google News অনুসরণ করুন

ভেড়া/ ছাগলের সংখ্যা ৪০ এর কম হলে কোন যাকাত দিতে হবে না ।
ভেড়া/ছাগলের সংখ্যা ৪০ থেকে ১২০ পর্যন্ত হলে যাকাতের পরিমাণ হবে= ১টি ভেড়া/ছাগল । ভেড়া/ছাগলের সংখ্যা ২০০ পর্যন্ত হলে যাকাতের পরিমাণ হবে = ২টি ভেড়া/ছাগল ৷
ভেড়া/ছাগলের সংখ্যা ৩০০ পর্যন্ত হলে যাকাতের পরিমাণ হবে = ৩টি ভেড়া/ছাগল ।
ভেড়া/ছাগলের সংখ্যা ৪০০ পর্যন্ত হলে যাকাতের পরিমাণ হবে = ৪টি ভেড়া/ছাগল ।
৪০০ এর পরের প্রতি ১০০ পূর্ণ হলে প্রতি শতের জন্য একটি করে ছাগল বা ভেড়া যাকাত দিতে হবে।

অর্থাৎ শতকরা একটি করে। ভেড়া-ছাগলের ক্ষেত্রে এক বছর বা তার বেশি বয়সের একটি বাচ্চা যাকাত হিসেবে দিতে হবে। (পশু সম্পদ)

গরু-মহিষের নিসাব ও যাকাতের হার

যাকাতের ব্যাপারে গরু ও মহিষের একই হুকুম । হযরত উমর ইব্ন আবদুল আযীয (র) মহিষকে গরু হিসেবে ধরে তার উপর ঐ ধরনের যাকাত আরোপ করেন যা নবী কারীম (সা) গরুর জন্য নির্ধারণ করেছিলেন। উভয়ের নিসাব ও যাকাতের হার এক। কারো কাছে উভয় ধরনের পশু থাকলে উভয়কে মিলিয়ে নিসাব পূর্ণ হলে যাকাত ফরয হবে। যার সংখ্যা বেশি হবে তার মধ্য থেকে যাকাত দিতে হবে। উভয়ের সংখ্যা সমান হলে যে কোন একটি যাকাত দেওয়া যাবে।

যে ব্যক্তি ৩০টি গরু-মহিষের মালিক হবে তার উপর যাকাত ফরয হবে। এর কম হলে যাকাত নেই ।
৩০টি গরু-মহিষের মধ্যে গরু বা মহিষের একটি বাচ্চা দিতে হবে, যার বয়স পূর্ণ এক বছর হয়েছে।
৩১টি থেকে ৩৯টি পর্যন্ত অতিরিক্ত কোন যাকাত নেই। ৪০টি গরু-মহিষ হলে এমন একটি বাচ্চা যাকাত দিতে হবে যার বয়স পূর্ণ দু’বছর।
৪১টি থেকে ৫৯ পর্যন্ত অতিরিক্ত কোন যাকাত নেই।
৬০টি গরু-মহিষ হলে এক বছরের দু’টি বাচ্চা যাকাত দিতে হবে।
৬০ এর পরে প্রতি ৩০টি গরু-মহিষের জন্য এক বছরের একটি বাচ্চা
এবং প্রতি ৪০টি গরু-মহিষের জন্য দু’বছরের একটি বাচ্চা যাকাত দিতে হবে।

আরও পড়ুন >> বাকী এবং কিস্তিতে ক্রয়বিক্রয় ইসলামে জায়েজ কিনা?

উটের নিসাব ও যাকাতের হার

যে ব্যক্তি পাঁচটি উটের মালিক হবে সে সাহিবে নিসাব’ হবে। তার উপর যাকাত ফরয । এর কম উটের যাকাত নেই ।

৫টি থেকে ৯টি পর্যন্ত উটের জন্য একটি ছাগল যাকাত দিতে হবে।
১০টি উট হলে ২টি ছাগল এবং ১৪টি পর্যন্ত ঐ ২টিই দিতে হবে ।
১৫টি উট হলে ৩টি ছাগল এবং ১৯টি পর্যন্ত ঐ একই ।
২০টি উটের ৪টি ছাগল এবং ২৪টি পর্যন্ত ঐ একই ।
২৫টি উটের উপর এমন এক উটনী যার বয়স দ্বিতীয় বছর শুরু হয়েছে।
২৬টি থেকে ৩৫টি পর্যন্ত অতিরিক্ত কিছু দিতে হবে না ।
৩৬টি উট হলে এমন এক উটনী দিতে হবে যার বয়স তৃতীয় বছর শুরু হয়েছে।

৩৭টি থেকে ৪৫টি পর্যন্ত অতিরিক্ত কোন যাকাত নেই ।
৪৬টি উট হলে এমন এক উটনী দিতে হবে যার বয়স চতুর্থ বছর শুরু হয়েছে।
৪৭টি থেকে ৬০টি পর্যন্ত অতিরিক্ত কোন যাকাত নেই ।
৬১টি হলে এমন এক উটনী দিতে হবে যার বয়স পঞ্চম বছর শুরু হয়েছে ।
৬২টি থেকে ৭৫টি পর্যন্ত অতিরিক্ত কোন যাকাত নেই।
৭৬টি হলে দু’টি উটনী যাদের বয়স তৃতীয় বছর শুরু হয়েছে।
৭৭টি থেকে ৯০টি পর্যন্ত অতিরিক্ত কোন যাকাত নেই ।
৯১টি হলে দু’টি এমন উনী যার বয়স চতুর্থ বছর শুরু হয়েছে।
১২০টি পর্যন্ত উপরোক্ত দু’টি উটনী ।

তারপর পুনরায় সেই হিসাব শুরু হবে অর্থাৎ ৫টির উপর এক ছাগল, ১০টির উপর দুই ছাগল ইত্যাদি ।

পশু সম্পদ পশু সম্পদ পশু সম্পদ পশু সম্পদ পশু সম্পদ পশু সম্পদ পশু সম্পদ

 

Check Also

হাদীসে বর্ণিত

হাদীসে বর্ণিত বিশেষ কয়েকটি মুনাজাত ও তার গুরুত্ব

Spread the loveহাদীসে বর্ণিত মুনাজাত সমুহ আলোচনা করার আগে আপনাদের আল্লাহ তার রাসুলের প্রতি বিশ্বাস …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *