কাতারের মাসায়েল – নামাজে কাতার দাঁড়ানোর সঠিক নিয়ম

Spread the love

কাতারের মাসায়েল – মুক্তাদী একজন হলে ইমামের ডান পার্শ্বে ইমামের সমান বা কিঞ্চিত পিছনে দাঁড়াবে। ইমামের বাম দিকে বা সােজা পিছনে দাঁড়ানাে মাকরূহ।

মুক্তাদী দুই জন বা বেশী হলে ইমামের পিছনে কাতার বেঁধে দাঁড়াবে। যদি দুইজন হওয়া অবস্থায় ইমামের পাশে (একজন ডান পাশে একজন বাম পাশে) দাঁড়ায়, তাহলে মাকরূহ তানযীহী হবে আর দুইজনের বেশী হওয়া অবস্থায় ইমামের পাশে দাঁড়ালে মাকরূহ তাহরীমী হবে।

দুইয়ের অধিক মুক্তাদী হলে ইমামের জন্য আগে দাঁড়ানাে ওয়াজিব। অতএব একজন মুক্তাদীকে ডানপার্শ্বে নিয়ে নামায শুরু করার পর যদি আরও মুসল্লী আসে তাহলে প্রথম মােক্তাদীর পিছনে সরে আসা উচিত যাতে আগন্তুকদের নিয়ে পিছনে কাতার বাঁধতে পারে। যদি সে পিছনে না সরে তাহলেও আগন্তুক মুসল্লীগণ আস্তে হাত দিয়ে তাকে পিছনের দিকে টেনে আনবে। এরূপ না করে আগুন্তুক মুসল্লীও যদি ইমামের পার্শ্বে দাঁড়িয়ে যায়। তাহলে ইমাম সামনে জায়গা থাকলে আগে বেড়ে যাবে, তবে সাজদার জায়গা থেকে আগে বাড়বেন না। অনুরূপ ভাবে যদি পিছনে জায়গা না থাকে তাহলে মুক্তাদীর অপেক্ষা না করে ইমামেরই আগে বেড়ে যাওয়া উচিত।

আরও পড়ুন >>চুমু দেওয়া ও কদমবুছী করা কি জায়েজ

ভিডিও >> ডিসি’কে গাধা বলায় কি অবস্থা হলো দেখুন

মুক্তাদী যদি একজন স্ত্রীলােক বা একটি নাবালেগা বালিকা হয় তাহলেও তাকে ইমামের পিছনে দাঁড়াতে হবে-ইমামের পার্শ্বে নয়।

মুক্তাদীদের মধ্যে বালেগ পুরুষ, নাবালক, বালেগা নারী- এরূপ বিভিন্ন প্রকারের লােক থাকলে নিম্নোক্ত নিয়ম ও তারতীব অনুসারে কাতার বাঁধতে হবে । প্রথম পুরুষগণের, তারপর নাবালেগদের, তারপর বালেগা নারীদের, তারপর নাবালেগাদের।

একজন মাত্র অপ্রাপ্ত বয়স্ক ছেলে থাকলে তাকে বয়স্কদের সাথে এক কাতারে দাঁড়িয়ে নিবে এবং একাধিক হলে বড়দের পিছনে তাদের জন্য পৃথক কাতারের ব্যবস্থা করবে।

কোন কাতার পূর্ণ হয়ে যাওয়ার পর একজন মাত্র মুসল্লী আসলে তার জন্য একা একা ভিন্ন কাতারে দাঁড়ানাে মাকরূহ। সে অন্য কারও আগমনের অপেক্ষা করবে। অন্য কেউ না আসলে ইমামের সােজা পিছনের লােকটিকে টেনে নিয়ে কাতার বেঁধে দাঁড়াবে। তবে পিছনে টেনে আনলে মাসআলা না জানার কারণে উক্ত লােকটির যদি এমন কোন কাজ করার সম্ভাবনা থাকে যাতে নামায ফাসেদ হয়ে যাবে বা সে খারাপ মনে করে, তাহলে টেনে আনবেনা, একা একাই দাঁড়িয়ে যাবে ।

কাতার সােজা করা এবং মিলি মিলে দাঁড়ানাে জরুরী (গুরুত্বপূর্ণ সুন্নাত) এর জন্য মুসল্লীদের আদেশ ও হেদায়েত করা ইমামের দায়িত্ব এবং মুসল্লীদের তা মান্য করা কর্তব্য। তবে খুব বেশী চাপাচাপি করে কাউকে কষ্ট দেয়াও মােনাছে নয়।

আগের কাতারে জায়গা থাকতে পিছনের কাতারে দাঁড়ানাে মাকরূহ।
কাতার বাঁধার নিয়ম হল প্রথমে একজন ঠিক ইমামের পিছনে দাঁড়াবে, তারপর একজন ডানে একজন বামে- এরূপে ক্রমাগত কাতার পূর্ণ হবে।
কাতার সােজা করার নিয়ম হল কাধে কাধ এবং পায়ের টাখনা গিরাকে বরবার করে দাঁড়ানাে।

আরও পড়ুন >>জামায়াতে নামাজ পড়ার নিয়ম ও ফজিলত

আরও পড়ুন >>মটরসাইকেল চালানোর কিছু সতর্কবার্তা

Check Also

হাদীসে বর্ণিত

হাদীসে বর্ণিত বিশেষ কয়েকটি মুনাজাত ও তার গুরুত্ব

Spread the loveহাদীসে বর্ণিত মুনাজাত সমুহ আলোচনা করার আগে আপনাদের আল্লাহ তার রাসুলের প্রতি বিশ্বাস …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *